বিজ্ঞাপন।

পপ ছে হতে পপর

হ্চুল সমূহের প্রধানতম ইন্স্পের শ্রীযুক্ত এইচ্‌ উড়ো এম, মহোদযের অন্গমতি লইয়া আমি এই গ্রন্থ সন্কলন করিতে প্রবৃত্ত হই সঙ্কলম বিষয়ে উক্ত মহা কলার নিকট বিশেষ সাহায্য প্রাপ্ত হইয়াছি |

অনবকাঁশ বশতঃ গ্ন্থুখানি*জব্বপ্রকার দোষ শুম) ক্রিয়া তুলিতে পারিলাম ন।। খ্যান্থ্য-রক্ষার নিয়মাদি সাধা- রণেব বোধগম্য করিবার প্রয়াসে, সরল ভাষা লিখিতে চেক্টা পাইয়াছি। এই পুস্তক ক্ক,লের ছাত্রাদিশেব পাঠ্য হইবে বলিয়া, ইহাতে বিবাহ প্রভুতি কয়েকটী : বিষয় নন্গিবেশিত হইল ন| | ল্বাস্থা-রক্ষা অতি কঠিন বিষয়্। ইহার সমুদ্রায় নিয়ম একত্র করিতে গেলে, গ্রান্থের আকার বহু হইয়া উঠিবে এই আশঙ্কায় কতিপয় সাধাঁ- রণ নিয়ম মাত্র সহ্কলিত হইল | *

এক্ষণে পাঠকবর্গের প্রতি নিবেদন এই যে, কোন স্থানে ভ্রম লক্ষিত হইলে, অনুগ্রহ করিয়া আমাকে জানাইয়া বাধিত করিবেন দ্বিতীয়বার মুদ্রাঙ্কণকালে, সকৃতজ্ঞ-চিত্তে তাহী.সংশোধন করিয়া দিব |

আমার পরম বন্ধু ্রীযুক্ত বাবু রাজকৃষ্ণ রায় চেধুরী কৃত নরদেহ নির্ণয় খ্রস্থ হইতে অনেক শব্দ গহীত হুইয়াছে:4 - কিমখিক.মিতি |

কলিকাতা রে ১০ইজানরারি। ] জীরাধিকাপ্রদন্ন মুখোপাধ্যায় / ; ১৮৪৪ ! ) ৃী

স্বাস্থ্য রক্ষা ।. স্পট) 2১০8

উপক্রমণিক]। আমাদের দেশ জ্বর, ওলাউঠা প্রভৃতি ভয়ানক রোগের আবাসভুমি হইয়। উঠিয়াছে। কয়েক বশুদন রের মধ্যে কতশত গ্রাম এককালে প্রী্রষ্ট হইয়। গিয়ান্ছে, এবং এক্ষণে নান। স্থান পীড়ার আতিশয্য বশতঃ বাসের অযোগ্য হইয়া যাইতেছে কিন্তু কি কারণে এই সক ছুর্ঘটনা ঘাটতেছে কি উপায়েই বা তষ্্রাদের প্রতি- বিধান হয়, তদ্বিবয়ে অনেকেই ওদাসীন্য প্রকাশ করিয়া থাকেন। ভৌতিক শীরীরিক নিয়ম লবন করিয়া ঘে - আমরা রোগ মৃতু মুখে পতিত হইতেছি তাহ! অন্গে- কেই বুঝেন না, কেহ কেহ অপ্প পরিমাণে বুঝিয়াও অভ্যাস অবস্থা দোষে নিম্বম পালন করিয়া উঠিতে পা রেন নাঁ। অনেকে বিবেচনা করেন যে আমর! ঈশ্বরের কোঁপানলে। পতিত হইয়ান্ছি বলিয়াই এরূপ যন্ত্রণা ভোগ করিতেছি, কেহ কেহ বলেন যে আমাদের পুর্ববপুক্তষের! কোন নিয়ম প্রতিপালন না করিয়ও জ্বচ্ছম্দ শরীরে 'দর্ধায়ু হইয়। কালযাঁপন করিয়া গিয়ছেন, অতএব আমর! [ক]

র্‌ কেন নিয়মাধীন হইব? একপ তর্ক ভ্রম-সঙ্কল বলিতে হইবে | অতি ভোজন, ুর্গদ্ধময় বায়ু সেবন, অপরিষ্কত আর্্রেগ্রহে বাঁস, অতিশয় শ্পীত বা বৌদ্রেভোগ প্র- ভূত্তি অন্যায়াচরণ করিলে, শরীরে কোন ন। কোন প্রকার নখ হইবেই হঈবে, তদ্বিষয়ে অণুমাত্র সংশয় নাই। শীরী- র্িকনিয়ম লঙ্ঘনের দও কখনই না ছইবাঁর নহে | সুস্থ দঢ়কাঁয় ব্যক্তি যে মারিভয়াক্রান্ত স্তানে জণ্পক্ষণ মাত্র তারস্থিতি করিয়া অচিকি্স্য রোগগ্রস্ত হইয়।ছেন, ভাঙা! অমেকেই জানেন | আমাদের পুর্বররপুকবের! যে সকল নিয়ম পালন যেরূপ শারীরিক উবষয়িক ব্যপারে কালাতিপাত করিতেন এক্ষণে তাহার কিছুই লাই। আবস্থাঁভেদে দেশাঁচারের পরিবর্তীন-ভ্রেষে সকাল বিবয়েরই গ্রভেদ হইয়। সাইতেছে | অতএব 'যেএযে নিদ্ধম পালন করিয়া চলিলে স্বান্ক্য রক্ষ। ছস্স' তাহা! জান! আকলেরই কর্তব্য) কয়েক খান প্লাসিদ্ধ ইংরাজি * গ্রন্থ অবলম্বন করিয়া! স্বাস্থ্য" রক্ষেখপিযোকী কতক গুলি নিয়ম সং্াছ করিয়া এই. পুস্তক খানি সন্কলন করিয়াছি | ইচ্ছা! পাঠ করিয়! এত»

(১8-25-5282 ১5700 শন 80191 [শা 9া919]েছ 08105 4১160705 ' থিঃ08 উজওয়ঞ 06 ০0০8 0781৯ 200৮0 ন5০ 815086075 28৮5 ৮100৮ 901620009০0? 1105? 005001)08” 1056যঘ 80 02176816৮4০ ৩,

চি

দেশীয় দ্যক্তিদিগের কিছু উপকার হইলে আমার অভীষ্ট সিদ্ধি হইবে। |

বর্তমান কালে চিকিশুস।-শীস্ত্বের যে রূপ অনিশ্চিত অবস্থা দেখা যাইতেছে, তাহাতে প্রায় কৌন চিকিৎ- সকের হস্তেই শরীর সমপণ করিয়। নিশ্চিন্ত থাক। যায় না"! ভনেকেই জদ্থপযুত্ত অপব্রিমিত ওুঁধধ দিয়া নান! প্রকার কৃতল রোগের স্ত্রপাত করিয়া থাকেন |- এতভ- দেশে সে প্রাটান টিকিশ্স।-প্রণালী প্রচলিত আছে তাহার অবস্থা নিতান্ত হীন হইয়াছে, ডাক্তারদিগের মধ্যেও নানা প্রকার মতভেদ দেখা যাইতেছে! উষধ ব্যবস্থা করিবার সময় চিকিৎসকদিগের পরস্পরের অটনক্য দেখ] যায়। একে পীড়াই ক্লেশকর, তাহাতে আবার এরূপ চিকতসকদিগের হস্তে পতিত হওয়? আরও বিড্ম্বনার বিষয়। অতএব যাহাতে পীড়ার হস্তে পতিত হইতে ন। হয় তাদ্বিষয়ে সকলকেই যত্ন হওয়া কর্তব্য |

স্বাস্থ্য রক্ষা।

প্রথম অধ্যায়

শারীর ক্রিয়।!

যেযে নিয়ম পালন করিলে শরীর সুস্থ থাঁকে? দই সমুদয উল্লেখ করিবাু পুর্বে শারীর ক্রিয়ার বিষয়, ছু লেখ| 'আবশ্যক | সেই সকল ক্রিয়ার মধ্যে প্রথা বধান কয়েকটীর উল্লেখ করা ধাইতেছে। ক্ষুধী হইলেই আমর! জাহার করিয়া থাকি | খাঁদ্য ব্য হইতে রক্ত উৎপন্ধ হয়, সেই রক্ত জর্বাঙ্গে পারত হইয়া শরীব রক্ষা করে। কিন্ত ক্ষুধার কারণ (ক, ও,আহার করিলেই বা! কিরূপে তাহার শান্তি হয়, ঠাহ! জানা কর্তব্য! যেনিশ্বাস প্রশ্বাস ক্রিয়া ন। [ইলে ক্ষণ মধ্যেই জীবন নাঁশ হয়, এবৎ যে পরিশ্রম, গামাদের সমস্ত সুখের একমাত্র সাধন, দেই ছুই'্ী কার্য্য ণারাই ক্ষণে ক্ষণে শরীরের ক্ষয় হইয়া! থাকে | সেই কফতিপুরণ করিবার প্রয়োজন হইলেই ক্ষুধার উদয় হয়,

[

তখন আমরা আহার করিয়থ।কি | ভুক্ত দ্রব্য, শরীরের ' অভ্যন্তরে গিয়া তত্রস্থ যন্ত্র সকলের দ্বারা রক্ত রূপে পরিণত হইয়া শরীরের সর্ব স্থানে নঞ্চারিজ হয়, এবহ ক্ষয় প্রাপ্ত অংশের পুরণ করিয়া দেয়! শরীরের যে অংশ ভুধিক পরিমাণে সঞ্চালিত হয় তাহাই সর্বাপেক্ষা - শীদ, ক্ষয় প্রাপ্ত হয়, কিন্তু ক্ষয় হইতে না হইতেই আঁবার ত€প্রদেশে অধিক রক্ত যাইয়া শীঘ, শীঘু তাহার পূরণ করে। শরীর,-অস্থি, মাংস, চর্ম প্রভৃতি পদার্থ দ্বারা নির্টিত। আ্চর্যের বিষয় এই যে দে জমুদায়ই রক্ত হইতে উত্পন্ন হয়| অতএব শরীরের অন্যান্য অংশ যে কয়েক প্রকার ভেত্িক পদার্থে নিশ্মিত, রক্তে সে সকলেরই সত্তা আবশ্যক | বাস্তবিক * তাহাই আছে! সেই নিমিতই রক্তদ্বারা শরীরের ক্ষতি পুরণ, হইয়া! * রাসায়নিক শাক্ছের সাহায্য, শুক্ষ মাংস শুক্ষ রক্তে, যে

উপাদান যে গবিমাঁণে আছে) তাহ] অবধারিত হইয়/ছে। তাহা নিছে লিখিত হইল

মাংস রক্ত অঙ্গার ৫৯৮৩ ৫১,৯৩৬ উদক্গান 4৮৬ 2৫ যবক্ষাব দান ৯৮১৩ ৯০০৭ অমুজান ২১১৬৩ ২১০৩৩

: আন্যান্য পদীর্ঘ __ ৪:৯৩ ৪২৩

১৩ ০৭০৩ ১৪৩০১৪

এ. 861

নিল থাঁকে। রক্ত স্বীয় অংশ দ্বারা দেহের ক্ষিতপূরণ করিয়া স্বযং ক্ষয় প্রাপ্ত হয়, ভুক্ত দ্রব্য হইতে আবার রক্তের সেই ক্ষতি পুর্ণ হইয়া থাকে | আহার গ্রহণ মা করিলে অপ্প ক্ষণের মধ্যে রক্তের পুিকর অংশ দেহের ক্ষয়-নিবারণে নিংশেষ হইয়া পড়ে, শুতরাং শরীর ক্রমেই ক্ষীণ হইতে থাকে, সে সময় পু'ফিকর - অন্বন্বার! রক্তের পোষণ করিতে ন। পাঁরিলে অবশেষে মৃত্যু উপ* স্থিত হয় |

যে আহার দ্রব্য দ্বারা রক্তের দেহ-পুর্কিকারিতা! শক্তি জন্মে, মে যে প্রত্ররিয়। দ্বারা তাহার পরিপাক হয় তাহা বর্ণনা করা আবশ্যক | এক্ষণে সজেকপে তাহারই কথা বলা যাইতেছে

আমরা মুখ দ্বারা আহার গ্রছণ করি ছুঙ্ধাদি কয়েক প্রকার দ্রব্য এককালে গন্দাধঃকরণ হয়, অন্যান্য দ্রব্য, চর্বণ করিতে হয়। চর্বণ কাঁলে দস্তস্বারা পিষ্ট লীলার সহিত মিশিত হইয়া গল-নালশ দ্বারা! অন্ন-নাঁলী মামক পথে গমন করে| পরে উদরের কিঞিঃৎ, বাম" ভাগে থলির ন্যায় স্থানে উপস্থিত হয়। এই স্থানকে আমাশয় কহে ,আমাশয়ে ভুক্ত দ্রব্য উপস্ছিত হুইবা- মাত্র, তথা হইতে এক প্রকার প্রবল অমুরদ উত্পক্ন': হইয়া! উহার সহিত মিশ্রিত হয়, তাহাতেই পরি- পাক হইতে থাকে | এই রনকে আমাঁশয়িক রস কছে।

চিঠি

পরে উত্ত দ্রব্য এক নলাক্তিম্দীর্ঘ* নাড়ীতে প্রযেশ করে] লাড়ীর নাম ক্ষু্জ ক্সান্্র বা পক়াশয় | নাড়ীতে থাকিতে থাকিতে যন্ত্রবিশেষ হইতে নিঃস্হত আরও তিন প্রকার রপের সহিত মিলিত হইলেই পাঁক- ক্রিয়া সমাধা হয় 1 আমাদের উদরের দক্ষিণ পারে য্কৎ, নামক এক খন্ত্র আছে, তাহা হইতে যে রস নির্গত ছয় তাহাকে পিতরস কছে'। উদরের বামদিগে আমা শয়ের নিন্নে আড় ভাবে অবস্থিত যে মাংস পিগ আছে, ভাহা হইতে এক প্রকার রূদ নির্গত হয়। এই ভুই প্রকার রস, স্বতন্ত্র স্থতক্্র প্রণালী দিয়া পকীশয়ের এক স্থানেই উপস্থিত হয়। আর এক প্রকার রস পকাশয়ের$ গাত্র হইতেই নির্গত হয় | এই তিন প্রকাঁর রস, আমাঁ- শয়িক রস লালা," ইহার মধ্যে একটীর অভাব বাঃ অস্পত। হইলেই পরিপাক ক্রিয়ার ব্যাঘাত জন্মো |

যে পীচ প্রকার পাচক রসের উল্লেখ করা গ্রে, তাহাদের শক্তি একরপ নছে। খাঁদা দ্রব্যের প্রক্কাতি অগুলারে ' রদবিশেষের কার্যকারিতা দেখ! যায়। উতঙ্গানদি পদার্থ মাংস পরিপাক করিতে লালা লহায়তা আবশ্যক করে না, আবার চাল, গম প্রভৃতি

৫৭ ইহা জীঘে গায় ২৬ ফীট হইবে। ইহার ব্যাস ১ইফ হইত ১৪

নি

লাঁলাযুক্ত না হুইলে কোন মতেই পরিপাক পাঁয় না| মাংসাদি কতকগুলি দ্রব্য আমাশয়িক রসে জীর্ণ হয়| ভুক্ত দ্রব্য পরিপাক পাইলে তাহার সমুদায় সারাংশ আমাশয় পকাঁশয় সংলগ্ন অসঙ্থ্য নাড়ী দ্বারা রক্তে নীত হইয়া তাঁহার পু্টিকরিত। সম্পাদন করে | পকাশয়ে পরিপাক কার্ধ্য নির্ববহ হইবা মাত্র খাঁ- দ্যের সারভাঁগ দেহ পোষণ কার্ষ্যে ব্যাপৃত হয়, তখন অনার ভাগ প্রণালীবিশেষ ছবার। মল রূপে নির্গত হইয়] পড়ে। কিরপে খাদ্যদ্রব্য পরিপাক পাইয়া রক্তে পরি- গুত হয় তাহা বর্ণিত হইল | এক্ষণে রং" দে শরীরের সর্বশ্থানে চালিত হইয। প্রয়োজন মতে ব্যয়িত “হয়, তাহার বর্ণন। করা আবশ্যক | এই ক্রিয়ার নাম রক্ত- ঈধালন | £আমাদের বক্ষঃস্থলের অভ্যন্তরে বামপার্খ্বে একটী শুন্য-গর্ত মাংদ থলি আছে। তাহাকে হৃদয় ব! রক্তাধার বলে | তাহা রক্ত পুর্ণ থাকে | নাঁড়ী বিশেষ দ্বার তথা হইতে দেহের নর্ব্ব স্থানে রক্ত চালিত হয় |. হত * হইতে চালিত রক্ত, প্রথমতঃ একটা স্থ,ল রক্তবা- ্‌ লী দাড়ীতে প্রেরিত হয়, নাড়ী ব্রভাবে জুদয়ের বাম পার্থর কিঞ্িঃও উর্ধে গমন করিয়া, পরে দিম্বাভিহুখ হইয়াছে | ইহ!র নানা শাখা মস্তক, বাহু, পদদয় প্রভৃতি

[ ১০ 4

শরীরের সয়দায় অঙ্গে প্রেরিত হইয়।ছে। এই শীখা- গুলিকে ধমনী কহে। এসকল শাঁখ। হইতে আঁবার' সুক্ষম লৃক্ষম প্রশীখা বাহির হইয়া সর্ব শরীরে ব্যাপ্ত হইয়াছে! এই গুলি এত স্ুক্গম ঘে অনুবীক্ষণ যক্ত্রের সাহাঘ্য বিনা দ্বাউগোচর হয় না| ইহারা কেশ অপে- ক্ষায় সুক্ষ, এজন্য ইহাদ্দিকে টকশিকা কহ! ঘাঁয়। যেসকল নাড়ীর উল্লেখ করা গেল ইহাদের দ্বারা চাঁজিত রক্ত সর্ধশরীরে গমন করিয়া দেহের পোষণকার্্ধ্য নির্বাহ কৰে। শরীরের শেখানে যে কিছু ক্ষয় হইয়াছে তাহায় পুরণ যেখানে যাহার র্ধি করিবার প্রয়ো জন, তাহা বর্ধিত করে| ক্ষন সক্ষম টৈশিফাঁপথে শরীরের সকল স্যাঁনে ভ্রমণ করিতে করিতে, রক্তের পুষ্টিকর পদার্থ সকল ব্যয়িত হইযা যায়, নান! 'অন্গ হইতে স্থলিত দযিত পদার্থ সকল ইহু।তে মিশ্রিত হইতে থাকে | এই রূপে ইচ্ছার উজ্জল লোহিত বণ কষ্ণ হয়| তখন ইহা আর এক প্রকার নাড়ী সমূহে নীত হয় | ইহ।দিগন্্ শিরা কহে টৈকশিকা সমূহের সহিত শিরা সকলের যোগ থাকাতেই তাহাতে রক্ত এম করে। শির1 সকল প্রথমতঃ নান। শাখায় বিভক্ত থাকিয়া! ইফশিকাঁ হইতে রক্ত গ্রহণ করিয়া, পরে ভুইটা সুর , রান শিরায় মিলিত হইয়াছে শিরাঁপথে ধাবিত রক্ত

নই ৩?

এই দুই প্রধান শিরা দ্বারা অবশেষে হৃদয়ের দক্ষিণ পার্শে উপস্থিত হয়। হৃদয়ে উপস্থিত হইবার কিয়ছক্ষণ পুর্বে খাদ্য দ্রব্যের সারভাগ আনিয়। ইহার সন্িত মিলিত হয়। | শিরাপথে যে রক্ত হৃদয়ে আনীত হয়, তাহাতে কয়েক প্রকার দূষিত পদার্থ থাকে সেই সকল পদার্থ দূরীকৃত ন। হইলে রক্তের পৌষণীশক্তি জদ্মে না, প্রতীত তাহা শরীরে চালিত হইলে বিৰ তুল্য অনিষ্ট- কারী হইয়া উঠে এই নিমিত্ত দূষিত রক্ত বিশোধনের উপারও আছে। উহা হৃদয়ের দক্ষিণ পার্শ্‌ স্জটাইতে অসঙ্খ্া নাড়ী হ্বার। ফুস্কুস্‌ নামক মন্ত্রে যাইয়া বিশোধিত হয়। ফুঁফুফুস্ঃ বক্ষ€স্কলের অভ্যন্তরে অবস্থিত: আমরা নিশ্বাল দ্বাৰা যে বায়ু শ্রহণ করি, তাহা! ফুসফুসে পাইয়া! রক্তের স্থিত দিলিত হইয়া অতি আশ্চর্ষ্য"

রামায়নিক কার্য উদ্ভাবন করে| উক্ত * কার্য দ্বারা, পুলর্বার রক্তে উজ্কূল লোহিত বর্ণ উৎ্পন্ন হয়!

* শবীবে অন্্রঙ্ঞান, উদজান, যবক্ষাবজান, ভাঙ্গাৰ এই কয়েক প্রকার শে*তির পদার্ধ অধিক পবিমাশে পাওয়া যাঁষ। ধমনী প্রবা ছিভ লোহিত বর্ণ পুষ্টিকব বক্তে, অযজান বাঁপ্পে ভাগ ভাধিক, কট শিরাস্থ ছবিত রক্তে শবীবের আলিত উদজান, অজার) যবক্ষার “মিক্স পঞার্ষ অঁধক পবিমাঁণে পাওয়া যায অগ্রজান বাষ্প ৭৪ ক্সঙ্জার যোগে, যে ছয় অঙ্জাবক বাষ্প উৎপন্ন ছৃষ১ যনক্ষার "জা এও উদজান যোগে যে, দি বাষ্প উৎপন্ন হয, উন শিরান্থ

[ ১২ 4

ত্পরে দেই বিশোধিত রক্ত, স্বতন্ত্র নাঁড়ী পরম্পরা দ্বারা হৃদয়ের বাম পার্শে, লীত হয়, তথা হইতে শরীরের পৌষণকার্যে নিয়োজিত হইতে থ।কে। অতএর দেখা যাইতেছে, হদয়দ্বারা তিনটী প্রধান

কার্ষ্য সাধন হয়| প্রথমতঃ ধননী-পথে সর্ব্বশরীয়ে . পুর্টিকর রক্ত-চাঁলন, দ্বিতীয়তঃ, সেই রক্তের পুনরাহরণ, ভূভীয়তঃ সেই পুনরাহারিত রক্তের বিশোধন, এই তিন'লী ক্রিয়া! দ্বারা আমাদের জীবন রক্ষা হয় |

_ জন্পরিপাঁক, এবং রক্তের ফর্চালন বিশোৌধন - ক্রিস্্দ সঙেক্ষপে বর্ণিত হইল | এক্ষণে যে মে যন্ত্র বিশেষ দ্বারা অঙ্গ চাঁলন1 হয়, তাহাদের উল্লেখ কর! যাইতেছে

পেশী নামক যন্ত্র বিশেষ দ্বারা অঙ্গ-সঞ্চালন সম্পাদিত হয়। এক এক পেশী লান। শ্‌ক্সমশ্ক্ষন স্ত্রের সমন্টি। “আমরা পশু-শরীরের যে অংশ মাংস বলিয়া ভক্ষণ করিয়া! থাকি সে সকল পেশী মাত্র। পেশী সকল আবশ্যকমত সস্কৃচিত হইতে পাঁরে। রূপ সঙ্কুচিত

৮৮৮ শশী শিশপপীশীাীটা শীট শিট শান শীতিটি পাটি শা পিসি

আমব। নিশাঁষ দ্বাব] যে বাষ্‌, গ্রহণ কবি তাহাতে প্রধানতঃ ৭৯ ভাঁগ যবক্পার জান ২৯ ভাঁগ অঙ্ঈজান বাপ্প খাকে। অক্পজান যাঞ্পের সংযোগে রক্তস্থ উদজান অঙ্গার, জলীয় বাস্প ছ্যন্ ক্সক্ারক বা্প রূপে পরিএত হয় অঙ্জজাম বাপ্পযোগে যখন থে ক্লীনায়দিক কার্ধয হয়-ভাহাতে তাপ নির্গমন হয় তাছাতেই ব্আ-

শরীরের তাপ রক্ষণ হয়। বিওক্ষ বার়,তে যবক্ষার জান, রীতি, অন্যান্য বাস্পও আঁতি কল্প পরিমাদে পাওয়!

[১৩

হওয়াতেই জঙ্গ-চ।লন। হয়। হস্ত, পদ. প্রভৃতি স্থানের পেশী আমাদের ইচ্ছানুনারে সঙ্কুচিত হইয়া খা, এজন্য ভাহ।পিগকে ইচ্ছা ন্গ পেশী কহে। অন্য ফতরুগুলি পেশী আছে, তাহারা কখনই. আমাদের ইডছায়ত্ত নহে, ভাহাদিশকে টন্বরপেশ্ট ৰলে। আমাদের

য়.ও.পাকযস্জ্রের পেশী লকল এই রূপ |

» আমাদের শরীরে স্নায়ু নামক বস্ত্র আছে পেঙ্গী সকল তাহাদের অধীন হইয়া কার্ধা করে। জ্জায়ু সকল, মন্তিফ মেকদণ্ড হইতে বহির্গতএবং নান! দক্ষ সুক্ষ শাখা প্রশাখায় বিভক্ত হইয়া শরীরের সর্ববস্থান্েব্যাপ্ত হইযা আছে। ইহাদের কার্য অতি বিল্ময়জনক | ইহার] শারীরিক মানদিক উভয় প্রকার কার্যেরই সাধক। আমাদের মনে যে কোন চিন্তার উদয় হউক ন। কেন, তৎসমুদায়ই ায়ুমূল-মন্তিক্ক ঘ।র] সাঁথিত হয়: আমবা সায়ু বানাই বাহাবস্ত্র পরিচয় পাই, এবং কোন অজ্জপরিচালন করিবার ইচ্ছা হইলে সেই ইচ্ছা সায় দ্বারাই উক্ত ভঙ্গের পেশীতে সন্বে দিত হইয়া তাহাঁকে সঙ্কুর্টিত করে; তাহাতেই অঙ্গ-চাঁলনা হইয়া থাকে আমাদের শরীরের অভ্যন্তরে হৃদয়, পাকঘন্ত্র প্রভৃতির কার্ম্যও মামু সকলের উপর নির্ভর করে তাহার সন্মোঠু নাই। দর্শন শ্রবণজ্ঞান প্রভৃতি অমুদায় জ্ঞানই সায় দ্বারা উপলস্ধ হইয়া! থাকে।

"খা ]

[ ১৪ ]

যে সকল যক্্রের কার্ধ্য উল্লেখ কয় গেল, তথ্বাতীত আরও একটী কার্য দ্বারা আমাদের শরীর বক্ষা হয় আ- মাদের ত্বক দ্বারা এই কার্ধ্য সম্পাদন হয়। যেমন ফুসফুসের কার্ধয দ্বারা, শরীরের স্ষিত্ত পদার্থ সকল তনবরতই বাহির হইয়া যায়, ত্বক স্বারাওড কিছ্নুৎ পরিমাণে সেই কার্য সম্পন্ন হয়। ত্বক দ্বারা শ্বেদ নির্গত হয়, তাহাতে জলীয় পদার্থ ওগ্গানা একার দূষিত পদার্থ নির্থত হইয়া থাকে; তাহাতেই ঘর্দে এত নুর্গন্ধ হয়। চর্ট্দের অসঙ্খা ছিদ্র স্বার! যেমন ন্ফেদ বাহির হয, তেমনই আবার তদ্দররা বায়ু জল প্রবেশ করিয়া রাক্তের শীতলতা। সম্পাদন করে।

স্প্টী

২য় অধ্যায়।

খাদ্য খা সংসারে যত প্রকার রোগ আছে, তাহার অধি- কাহশই অতিভৌজন বা অন্মপযৃক্ত দ্রব্য ভোজন হইতে ধা হইয়া থাকে। অভীর্ণদোবে অ্বর, শূল, আমাশয়, রিির্কোয, “ম্তিক্কের পীড়া, কাশ, শ্বাস প্রভৃতি রোগ ছটা কত. লোকের অশেষ ক্লেশ অকাল মৃদ্ধুয হই- কুছ, তাছার গ্থ্া! করা যায় না। অতএব কিরূপ

[ ১৫

নিয়মে 'আহাঁর করা উচিত 'ভদ্দিষয়ের বিবেচনায় প্রবৃত্ত) হওয়া গেল।

পুর্সেই উল্লেখ করা গিয়াছে, আমরা যাছা আহার করিয়। থাকি, তাহার মারভাগ রূক্তরূপে পরিণত হইয়া শরীরের পোষণ করে অতএব প্রতীয়মান হই- ডেছে, যে সকল পদার্থ দ্বারা শরীরের পুর্টিসাধন হতে পারে, সেই সকল পদার্থ আমাদের. খাদ্য চাল ডাল, গম, তেল, মাচ, মাস, আলু, দুধ, চিন্সি প্রভৃতি যে সকল দ্রব্য আমরা ঘচর।চর আহার করিয়া থাক, তৎ্সমুদায়ের পুর্টিকারিতাগ্ুণ থাক।তেই তাহারা উতর খংদ্য মধো পরিগণিত হইয়াছে

ইউবোপীযর় পণ্িতের। স্থির করিয়াছেন, খাদ্য ভ্রি-. বিধ শক্তিবিশিন্ট না হইলে তদ রা শরীর-পোধণ ছয় না। গুঃটেন, উতল, শর্করা বা স্টার্চ এই তিন পদার্থ যে যে দ্রব্যে 'আবশ্যকমত পাওয়া যায়, সেই সকলই আমাদের খাদ্য। গম চাল প্রভৃতি জব্যের শুভ্রাংশকে ব্টার্চ কছে | পিক্গলবর্ণ অংশের নাম গন টেন। প্টেন ক্টার্চ অঞ্প ব। অধিক পরিমাণে অনেক টি পাওয়া যায়। মাংসে গ্ঃটেন অধিক শস্যাদিতে রঃ ভি পরিমাণে পাওয়া খায়।

.কটেল দ্বার! শরীরের অস্টি, পেশী রসি সা: পরশ স্টল শর্করা, বা স্টার্চ নিশ্বসিত তমজাদ

[১৬4

বাল্পযোগে দগ্ধ হইয়া শরীবে ভাপ উদ্ভাবন করে) পরিশেষে জলীয় বঙ্প দ্বায়ু অঙ্গারক বায়ুরূপে পরি- ণত হইয়া বহিষ্কৃত হয়। উতল, শকরা, ফ্টার্চ এক জাতীয় পদার্ঘথ। ইচ্ছার সকঙ্গে টতলরূপে পরিণত হইয়। দগ্ধ হইয়া থাকে | এবং ইহাঁদের কিয়দৎশ দ্বারা শরীরে মেদ সঞ্চয় হয়

যে ত্রিবিধ পদার্থের কথা লেখা হইল তাহার কোনটীর অভীৰ হইলে শরীররক্ষা হয় না| খাদ গম বা চালের টেন ব! সার্চ বাহির করিয়। লইয়া, কোন ব্যতিকে শুপ্ধ তাহার অবশিষ্ট ভাগ রন্ধন করিয়া খায়ন যায় তাহ। হইলে তাহ।র শরীর শুষ্ক হইতে থাকে পরি শেষে মৃত্যু উপস্থিত হয়। জুগ্ধ ব্যতীত এমন কোন দ্রব্য নাই শুদ্ধ যাহার উপর নির্ভর করিয়া নির্ব্বিঘে শরীর-ধারথ কর] যায়। ছ্বুপ্ধের অতি আশ্চর্য শক্তি . ইহাতে তিন একার পদার্থ প্রয়োজনমতে মিশ্রিত থাকাতে ঝড় ভ্তন্-পন করয়। শিশুগণ পরিপুষজ্ট পরিবর্ধিত ছইয়া থাকে শস্যাদির মধ্যে গম প্রধান শুদ্ধ গম সষ্কার করিক়্। অনেক দিন বাচিয়া থাকা যায়, এই নিসিত্ধ ইন য্মেক,. দেশে ব্যবহৃত | ইহাতে উতলের ভাগ না খাকাতে রি ঘত সংযোগ করিয়া কলি-বা লুচী অস্ত ক্রয় বাকি

তা দেশে অপুরষ্টিকর . ব্য ভোজন ররিযুঃ

5৭

বওসর বহ্সর 7ত 'লোকের মৃতু হইতেছে, ভাঙার. *সঙ্্যা করা যাঁয় না| যে ত্রিবিধ পদার্থের উল্লেখ কর থিয়াছে, হয়ত তাহার মধ্যে স্টার্ট ভিন্ন আর কোর্স ; পদার্থ উপযুক্ত পরিদন্রী। না পাইয়া অনেক দুঃখী লোক নিতান্ত দুর্বল ক্ষীণকায় হইয়া পড়ে, 'গ ক্রমে ক্রমে অনাহার মৃত্যুর দমদয় লক্ষণা ্রান্ত হইয়! মৃত্যুগ্রাসে.পতিত হয়| কিন্তু তাহারা পুর্টিকর আহার পাইলে অপ্পদিনের মধ্যে সবল সুস্থ হইয়া উঠে! এদেশের ভ্ত্রীলোকদিগের মধ্যেও অনেকে জু্ধ, সত মতন্যাদি আবশাকমভ,লা খাইয়া কণ্ হইয়া পড়েন. আহার বিষধে স্ত্রীজাতির যে ক্বাভীবিক লজ্জা! তাহার বশীভূত হইয়া সাহারা সন্তানগণকে পুক্তষ-' বর্গকে প্রায় উৎ্উ দ্রব্য অগ্গণ করিয়া আপনারা অতি সমোন্য দ্রব্য আহার করিয়া কতই 'ক্লেশ পাইয়া থাকেন | ভদ্রলৌকের মধো অনেকে পীড়া হইতে মুক্ত হইয়া, পরে পুর্িকর আছারাভাবে দীর্ঘ কাল দুর্াল ধাঁকেন পুনঃ পুনঃ রোগাক্রান্ত হন |

দেহ” ভ্রমণ করিতে করিতে রক্তের পু্টিকর পদার্থ শরীরের-কার্য্যে বিনিয়োজিত হইয়! গেলে, হুতন পদা- খের আবাকি হওয়াতে ুধা উপস্থিত হইয়া আমাঁদি- গকে আছার-গ্রহণে প্রবর্তিত করে আপাততঃ রোধ- হয় যেন পাকযত্রই ক্বুধার : স্থান, কিন্ত বাস্তবিক আহা

[৯৮ 4

পচে ইচ্ছা দর্ধ শরীর-বযাপী। দি আহার-্রহণ করি ধাক্ছাত সধজনিত-ক্লেশ' এককালে দুর হত, তাহা হইলে" পাকযত্ত্ই ক্ষুধার স্থান বলিয়। বিশ্বাস হছইত। উপবালের পর আহার করিতে তত্গাতমাৎ পূর্ববদেরববল্য ঘায় না, যে প্যান ুক্ত অযের কিছ পরিপাক হইয়া রক্তে লিয়েজিত ন! হয়, ততক্ষণ কোনমতেই শরীর লুস্থ হয় না। ॥. কি পরিমাণে আহার করিলে শরীর সবল থাকে; (ত্বাছা। খিবেচন। করা কর্তব্য | এবিষয়ে অত্যাসই প্রধান; কোম ব্যক্তি অধিক খাইয়াও অনায়াসে পরিপাক করিতে পারেন; অনা কেহ ভত্পরিমাণে খাইলে তত” কণা পীড়িত হইয়া পড়েন। কিন্তু াচরাঁচর অভি ভোজন কছ্িয়া ভনেকেই ক্রেশ পাইয়া থাকেল | তী- ছারা বিবেচনা করেন, যে পর্থান্ত' উদয় ল্গীভ হইয়। না উঠে, ততক্ষণ কাহার করা কর্তব্য এরূপ বিবেচনা মূর্খ ভ্বীরশতঃই হয়! থাকে | যাহা। হউক, বীরে ধীরে চর্বণ . করিয়া, 'আাহার করিলে, ক্ষুথা-শাস্তি হইল কি না তনহ। 'ছনানাঁসেই, বুঝা যাইতে পারে | ডাঁড়াতাতি ফারিয়া তা যিক অন উদর হয় বটে, কিন্ত | শীঙ্ঘ শীধ্‌, শরীর পোষণ হয় ওয়াল নম জু টক অজ্ঞতা দেণয়ে ভাম্তি সা াগের- ্রীুর্ভাব 'ইইতিছে। অধিক: আহার দিলে

1 ১৯ এ]

শিশু সন্তানেরা শীখ্‌ শীঘ্‌ সবল হবে তাবিয়া হারা কত অনিষ্ট করিয়া থাকেন অকল শিশুই প্রায় উদয়া- নয় প্রভৃতি ক্লেশকর রোগগ্রন্ত হইয়া থাকে, 'ও কসনেকে অপ্প বয়নে মৃত্যু-শয্যায় ' শয়ন করিয়া অবোধজননী* দিগকে চিয়ছুঃখিনী করিয়া যায়| কিন্ত মূর্খতা ফি সুখের বিষয়, প্রকৃত কারণ না ভ্রানাতে তঙ্জন্য স্তাহারা কোন অন্ুতাপই অন্ুভব করেন না। শৈঠৈবাবস্থায় অতি ভোজন নান হইলে আমাদের শ্মিতিস্থাপক . পাকস্থুজির আয়তন রৃ্ধি হওয়াতে, প্রয়োজলাতিরিক্ আহার মা করিলে আর তৃপ্তি বোধ হয় না; সুতিরাহ খত ৰয়োতদ্ি হয় ততই অপরিমিভ আহারে প্রর্তি জঙ্গি]. ষায়। যাহারা মাতৃ ক্রোড়ে এক্ূপ দোষাকর ব্যবহাে দীক্ষিত ছয় তাহাদের বাচিবাঁর উপায় কি? |

অভিভোজমজনি-ত রোগের উপবাঁদই এফ মাত্র ওধধ। উপবাস কা্রলে ৰা আহারের গরিষাথ কমাইয়া দিলেই রোগ হইতে যুক্তি লাভ করা খায় এইক্সহজ উপায় অবলম্বন না করিয়। ভনেকে নাঁনা- রক্ষার হঁধধ খাইয়া থাকেন) কিন্তু রোগের প্রকৃত কারণ উপস্থিত. থাকাতে ভাহাতে তাদৃশ উপকার হয় শা) এরূপ অবস্থায় ও'ধধ-দেখন কেবল অভি ভৌঁজনের সহী- পভাই করিয়া থাকে |" ফেছ ঞঞ্চহ কি ভোজনের

[ ২*

অনুরোধে সুরা, সিদ্ধি প্রভৃতি মাদকদ্রব্য খাহিয়া কত ভনিষ্টপাত কবিয়। থাঁকেন, তাহা বল। মায় ন| |

আমরা যথেচ্ছাচারী হইয। আহার করিলে অপকার হুইবে, তাহার ৰিশিষ্ট কাঁবণই দেখা যাইতেছে যে কয়েকটা শারীরিক রসের সহিত মিলিত হইয়া অন্ন পরি পাক হুইয়। থাকে, সেই সকল রস প্রত্যহ নির্দিষ্ট পরি- মাণে উদ্পন্ন হয়। পরীক্ষা দ্বারা জানা গিয়াছে, সুস্ছ শরীরে প্রত্যহ প্রায় এক পাইন্ট লাল পাইন্ট আমাশয়িক রস নির্গত হয়) ইহাতে যে পরিমাণের জরব্য পরিপাক করা যাইতে পাঁরে, তাহ।র অধিক হইলে ভুক্ত ড্রব দীর্ঘ কাল উদরে থাকিয়া পাকথন্ত্র এরপীড়িত করে বা উদরাময় বমন প্রভৃতি রোগ জন্মাইয় দেয় |

খ। গিয়াছে, পীড়া কালে আহার করিলে তাহ! কয়েকু দিন বা কয়েক সপ্তাহ পর্য্যন্ত অপরিবর্তিত ভাবে উদঙ্্ে অবস্থিতি করে| এজন্য পীড়াকালে আহার ব্রি বিশেষ সতর্ক হওয়া উচিত

»+ আমাদের শরীরের যে জঙ্গ যত চালনা করা না ভাঙা তত শীঘ্‌ ক্ষয় হইয়া থাকে, এই ক্ষতিপূরণ জন্য গহন রক্ত তদভিমুখে অধিক পরমাণে ধাবিত হয় |. যার করিবামান্ত পাক'স্থলির কার্ধ্যারস্ত হইয়া! ভত্রস্ত

টলাী-ননূহ ভর্দল কইতে পারে.। তখন তাহাদিগকে সামর্থ্য প্রদান করিবার নিমিত্ত তৎ্্রদেশে রক্তের

[1 ২১ ]

প্রবল গতি হয | কোনমতে এই গতির বাঘাত ইলে পরিপাক কার্যেরও ব্যাঘাত হইর়া উঠে। অতএব আহারকালে বা তাহার অধ্যবহ্নিত পরে শারী- রিক বা মনদক পরিশ্রম করিলে ভঙ্গ বিশেষে বা 'গ্ন্তিফে রক্তের ভধিক অ'বশাক হওয়াতে, তাহা পাকযস্ত্রে গমন করিতে পারে না, সুতরাং ভাহাকে পরিপাক কার্প সুন্দদরূপে হুয় না| আহারের অব্যব- স্থিত পুরে পরিশ্রম করিলে রক্ত যে সকল ভঙ্গের ক্ষাতি- পুণে নিযুক্ত থাকে, তাহা হইতে সহসা পাক-যন্ত্ে ফিরিয়া আদিতে পারে লা, সতরাং পুর্র্বমত অনিষ্ট হয়* ভাতএব আহ!র করিবার আদ ঘণ্টা পুর্র্বণ পরে আঙ্ার কালে, কোঁন পবিশ্রীম না করিয়া কেবল আঁ” মোদ্ব প্রমেদ কৰ। কর্তব্য মন প্রফুল্ল থাকিলে নি- বির্বঘে শারীরিক কার্য সকল নির্ববাহ হইতে থাকে ! খাদ্য দ্রব্য পরিপাকের উপযুক্ত করিবার জন্য আ- মরা রদ্ধন করিঘ়। থ,ফি | কীটা চাল সহজে পরিপাক হয় না, কিন্ত ভাত জনায়ানে পরিপাক করা যায়| বুগ্ধন

সী লি জি পাকি উপ লি বিল আপিশিউিি পলিসি লট জি উল লি সি এপি সস

:*ওউ যুক্ত অনুসারে অ.হাবের অব্যবহিত পুেন বা পরে স্থান বা "অন্যায় সান গা মার্জনা) কৰিলে বক্তের "তি ত্বপন্তিমু্গে হয় শেউ বক পাকন্তলিতে ওত্যাব শত ছউ.লস্দান জাবম্ত দুপুর হয লা, প্রত বি সত না হইলে ভাল পদিপাক হই্্রুত পারে না।

[ ২২

দ্বারা খাদা-ড্রবোর স্টার্ট শর্করাসদৃশ হইয] উঠে, রটে কোমল হয় 9 টতল জমাট হইয়াষায়। পক অঃ প্রস্তুতি কয়েক্টতী ফল বন্ধন না করিয়া খাওয়া যায়, কারণ তাহারা পৃর্নেই লুর্ঘ্য-পকু হইয়া থাকে |

আমরা প্রথমতঃ বন্ধন পবে দন্ত দ্বারা পেষণ কবিয়া পনিপাক কোর নহায়তা করিয়া থাকি পেষণ করিবার সমঘ অন্বের সহিত লাল। মিশ্রিত হইয| তহণর অনেক রূপান্ুুর করিয়া থাকে | স্টার্ট বিশিউ দ্রবাধ্ীকল লালা সংযোগে শর্করার ন্যায় হইয়া থাকে, ভাছ। স্বাদ দ্বারাই ভন্ভৰ করা যায়! অতএব রুন্ধনকালে ভন যাহাতে অপক্ক না খাকে, চর্বন সমধে যাহাতে সুন্দর কপে পিষ্ট ল!লা মিশিত হয়, তদ্দিষয়ে মনোযোগী হুপ্রয়া উচিত | যাহারা তাঁভাতাড়ি করিয়া ভোৌঁভন কনে, ভাহাদিগকে এবিষয়ে গুকতর "অপরাধী খাতে হইবে নি

পরিপাক ক্রিয়ার সাহায্যই বন্ধনের একমী উঁ- জশ্য | কিন্তু ভুর্তগ্যবশতঃ ইহাতে এত কারীণিরী উপস্থিত হইয়াছে হইতেছে ঘে তাহার উল্লেখ ন। করিয়া ক্ষান্ত থাকিতে পারিলাম লা। রন্ধন সময়ে লণচি, মন্ভিচ, শবিযা, দাঁকচিলি, পলা, রভৃতি্গিন মসলা ধিক পরিমাণে খাদ্যে সংযুক্ত হইয়া তার গণের এত এ্রভেদ করিয়া ফেলে যে, ঘর দহজে পর্থি

[ ২৩ ]

পাক কর। যায় না. ভাধিক পরিমাণে খ।ইলে পিপাষ। উপশিত হয় পধক-যস্ত্রের অভ্যন্তর প্রণীঘ্ডিত হইয়া! নন! রোগের উদয় হইয়া থাকে পলান্ন, প্রভৃতি ঘৃত মলল' যুক্ত দ্রব্য এতত্দেশে অধিক পরিমাণে সহ্য হইবার নহে যাহারা স্থঃলকায় ছুরর্লল, অধিক মসলা খাইলে তাহাদেবই কেবল অপকার হয় না। অধিক পরিমাণে ঘৃত বা তৈল যুক্ত দ্রব্য ল্যাপ্‌ ল্যাড, প্রীণল্য গু প্রভৃতি কক সম্মিছিত দেশে বিশেষ উপকারী | সেখানে ইহ? স্বারা যেমন সহজে শারীরিক ভাপ রক্ষা শীত মিবারণ হয়, এমন আর কিছুতেই হয় না ভাঁত দ্বারাই এতর্দে- শীয় লোকেব শরীরের তাপ রক্ষা হইতে পারে। তেল বাচিনি অধিক খাইলে এদেশে গাত্র জ্বালা রোগ উপ- স্থিত হয়। পট: আমরা মাংস তোজন ন] করিয়া অনায়াসে দীর্ঘজীবী হইতে পারি। যে. সকল দ্রবা আমাদের খ।দা, তশ্সমু- দায়ে প্রয়োজনীর গ্র“টেন ফ্টার্চ পাওয়া যায়, সুতরাহ মাংস না খাইলে শরীর-রক্ষার কোন ব্যাঘাত হয় ন|। কিন্তু সয় বিশেষে মাংম খাওয়া অবশ্য-কর্তব্য হইয়। উঠে। যখন রোগ দ্বারা শরীর শী হয়, ততকালে ক্প্প পরিমিত দ্রব্যে অদ্ধিক পু্িকর পদার্থ আন্ছে এরূপ খাদ্য মনোনীত কর! কর্তব্য | দুগ্ধ মাংস ভিন্ন আর কোনদ্রব্যের বারা এই এয়োজন দাঁধন হয় না| উদরাঁ-

ঢা

ময়'বা অয্জের পীড়া থাকিলে ভুগ্ধে অপক্ার ভিন্ন উপকার হইবার সম্ভাবনা নছে, এরপ স্থলে মাঁংসই এক মাত্র অবলম্বন | কিন্তু আমাদের দেশে যে বুত্সিৎ প্র/লীতে মাংস রন্ধন করা হন, ভাহাতে পীড়িত ব্যক্তির ফথা দূরে থাকুক, সহজ শরীরেও পরিপাক কর! কঠিন ছয় | শলা বাঙিছ্ধ মাংমই রোগীর পথ্য; মনল! দৃতযুক্ত হইলেই গুকপাক হয়।

. আমাদের দেশে, মাংস ভোজনের বিশেষ প্রয়ো- জন লাই; কিন্ত শীতপ্রধ|নদেশে ইহ] বুল পরিমাণে বালছত। মনুযোর অসভ্যাবন্থাঁর পশু-মাংমই প্রধান জীবনোথায়। সভ্যতার বৃদ্ধি হইলে তন্যানা দ্রেব্য কর- ত্স্থ হয়, উন মাংসের ব্যবহার কমিয়া আনে

যাহার! অনুক্ষণ শারীরিক বা মানদিক পরিশ্রম করেন মাংদ তাহাদের পক্ষে মহোপকারী | ইহাদ্ব।র| ঘন শীত দেহের ক্ষতি-পৃরণ বৃদ্ধি,দাধন হয় তত আর ক্বিছুতেই হুয় না। এতদ্দেশীয় সত্রীলোকদিগকে অধিক পরিশ্রম করিতে হয় না খলিয়াই শাস্ত্রকর্তারা তাহাদিগকে হাহ. খাইতে নিষেধ করিয়া শিঁয়াছেন নিটিরিছুতি হর ' ৮" ধিক 'মনল্গাধুক্ত দ্রব্য খাইতে গেলে আর চাহ রত থাকে | মসলার অল্মারোধে অনেক্ষে অপরি- মত ভোজন রুরিয়া বসেন। এরূপ করা নিতাস্ত অন্যায়!

7২৫] অম্‌, আচার, আত্্সত্তব প্রভৃতি দ্রবোরও এই কূপ দোষ 1 দেখা ঘায়। কিন্তু অধিক মসলা ধুক্ত দ্রব্য খাঁওরা টি বলিয়া, জ্বাদগন্ধ-ুনা মৃত্ভিকাঁবৎ দ্রব্য আহার করাঁও অন্যায় | যাহা খানে তনিচ্ছা হয় তাহা"'পরিপাক করা কঠিন ' হয়| প্রান এক জব্য খাইলে আহ।রে অকচি হয়, এবং, শরীরে যে সকল পদাথের প্রয়ে জন ভাহাঁও পাওয়া যায় না, এজন্য" মধ্যে মধ্যে খাদ পরিবস্তন করা কর্তব্য | আমাদের দেশের শাজ্্রক্কারেরা তিথি বিনতে যে যেড্রব্য খাইতে নিষেধ করিয়। শিষাছেন, বোধ করি তাহার , উদ্দেশ্যই এই | খাদ্য দ্রন্য নিতান্ত শীতল বা উষ্ণ হইলে পরিপাক কার্যের ব্যাথাচ জন্মে, তাহাতে পাকঘন্ত্র সকল ভুর্র্বল হইয়া পড়ে। | পরিপাক কার্ধ্য নংপুর্ণ হইতে অন্ততঃ ৪ঘন্ট। কলের প্রয়োজন | বিল্ত কেহ কেহ ২1৩ ষণ্টা অন্তর কিছু কিছু 'আহার কাঁরয়া৷ থাকেন | উক্ত রূপ করাতে পাঁক- যন্ত্র সকল নিশ্রামাভাবে ছুর্ধল হইয়। য।য়। পরি- পাঁকান্তে ঘণ্ট। কাল বিশ্রাম পাইলেই পাক্যস্ত্র সকজ পুজরায় সতেজ হইয়া উঠে। অতএব একবার আহার করিলে অন্ততঃ তাহার ৬'ঘন্ট। পরে দ্বিতীয়বার আহার [ ]

[ ২৬].

কর! উচিত | প্রাঁতঃকাঁলে ১৪ টার লময় খাইলে বৈ- কালে টাঁর সময়, রাত্রিকালগে ১০ টার সময় খাঁওয়। উচিত। নিদ্রাকাঁলে পরিপাঁক হইতে অপেক্ষাক্কত অধিক সময় লাগে | এজন্য পর দিন ১০টা পর্য্যন্ত অনাহারী থাকিলে ক্লেশ হয় না| দিবমে আহারান্তে নিদ্রা যাওয়া নিতান্ত অন্যায় | তাঁহ| হইলে অজীর্ণ দোষ হয়।' এবপ হইলে যে পর্য্যন্ত সুন্দর রূপ ক্ষুধার উদ্রেক না হয়, তাবত কাঁল অনাহারী থাকা উচিত।

চাল, ভাল, ভ্ুধ, মাঁচ, মাংস প্রভৃতি আহার করিতে পাইলে, শ্রত্যহ, শুক্দ্রব্য এক সেরের অধিক রদ্ধন করিয়া খাইবার প্রয়োজন হয় না। যাহারা দুর্বল, যাহাদিগকে পরিশ্রম করিতে হয় না, তাহার অনেক কম পরিমাঁণে খাইলেই, তাহাদের শরীর হইতে পারে প্রত্যহ বারে দেড় পৌয়। চালের ভাত, এক পোয়া ময়দার লুচী বা কী, দুই ছটাঁক ডাল, আদসের ুধ খাঁইলেই দ্বাস্থ্য সামর্থ্য থ।কিতে পারে অধিক পরিশ্রম করিতে হইলে, ডালের পরিবর্তে এক পোয়া মাস খাইলে চলিতে পারে পরিশ্রম বয়ন তেদে আহারের পরিমাণের তারতম্য হইয়! থাকে।

কয়েক প্রকার ভাঁল, মাঁচ, তরকারী আমাদের ' দেশে সডরাঁচর ব্যবহৃত হইয়া থাকে | এসকল দ্রব্য

[ ২৭ ]

রন্ধন দ্বারা হুম্দররূপে সিদ্ধ না হইলে পরিপাক কার্যে ব্যাঘাত হয় | অনেকে অপন্ক ডাল বা তরকারী খাইয়। কত রোগ ভোগ করিয়া থাকেন ছুর্বল শরীরে ডা- লের ঝোল খাওয়া উচিত |

তরকাবীর মধ্যে কয়েক প্রকার আলু সর্বোত্কলট | পটল, বার্ত(কু প্রভৃতির হরিদশ কখনই পরিপাক হয় না, অতএব রন্ধন করিবার পুর্েই তাহ। পরিত্যাগ করা শ্রেয়স্কর | অুমরা"ঘে সকল শাক ব্যবহার করিমা থাকি তাহাতে প্রায়ই সারাংশ নাই, এজন্য তুসমুপ্ায়ই পীড়া দায়ক। তিক্তরদ বিশিষ্ট যে যে শাক খাইতে হয়, তাহার কাত খাইযাই নস্ট থাকা উচিত। শ[কজাতীয় দ্রব্যে মধ্যে কপি মর্বেবোত্ক্ঘ্ট | এত্- গন্দেশে অতি অপ্প লোকেই ইছ! ব্যবহার করিয়া! থাকেন। দিম, লাউ, কুগ্মাণ্ড প্রভৃতি রোগী ব্যন্ভির পক্ষে নিষিদ্ধ। যে যে তরকাবীতে হরিদংশ জলীয় ভাগ অধিক, তাছ। ব্যবহার করিলে পীড়া হইবার সম্ভাবনা

আমরা যে কয়েক প্রকার মণ্স্য খাইয়া থাকি তশ্বধ্যে রোহিত পর্সোৎ্কষ্ট | যে যে মস্যে তৈল বা জলের ভাগ অধিক তাঙ্ণাতে অপকা'র শ্িন্ন উপকার নাই। উতল অধিক থাঁফিলে পরিপাকের ব্যাথাত হয়, জলীয়ভাগ অদ্ধিক হইলে শরীরের উপকার হয় না! ক্ষুদ্র মৎস্য রোগীদিগের পক্ষে অনিষকর নহে | ইহাতে

[ ২৮

তৈতলের ভাগ অধিক ন| থাকাতে সহজে পরিপাক হয়। পচা মাচ রোগেব মূলীভূত, ইহ] নিতান্ত নিষিদ্ধ | মাচ, জল হইতে তুলিবার ১২ ঘন্ট। পে অনিউকর হইয়া উঠে। ৃঁ

আমণ। অনেক দ্রব্য তল দিয়! ভখজিয়! খাই যে দ্রব্য মিদ্ধ কৰিলে অনাঘ!সে পাবপাক কব। যাষ, ভাজিলে তাহ। উগ্র হইযা উঠে। অতএব ছুনল শরীরে ভাজা ডিনিয খাওযা অবৈধ

দি, ভমু এহতি জব্য সুস্থ শরীনে অপ্প পরিম।ণে থাইলে অপন্ার হয় না| লেনু, উল এতে বরং ক্ষুধ। ঘাছি। ভয়) কিন্ত ভধিক “লিগে” 'ইলে নানা রোগ ৬পহিত হয। জবর বিশেনে নহোঁ পকারা। |

অধিক পরিমাণে মিষ্টান্ন ভোজন করিলে শীড়। হয়। য।হাদের অজীর্ণ বেগ ভ'মেত্র পীড়া আছে, ইহা তাহাদের পক্ষে নিষিদ্ধ। সহজ শবীসে জপ পরিমাণে খাইলে উপকার ভিন্ন অপকা'র হয় না|

ফলের মধ্যে বেল মহোপকাবী | ইহা অপ্প পরি- মাঁণে মধ্যে মধ্যে খাওয়া উচিত। আম্‌, রস্তা প্রভৃতি আধিক পরিমাণে খাইলে কট হয বটে, কিন্ত সুস্থ শরীরে তাপ্প করিয়! খাইলে, ইহ।তে উপকার ভিন্ন অপকার

[২৯

নাই | সুস্থ শরীরে নারিকেল, পেঁপিয়া প্রভৃতিও উপ- কারী | কোঁমল নারিকেল সহজেই পরিপাক হয় 1 ছুদ্ধোত্পন্ন দ্রব্যের মধ্যে ঘৃত সর্ব প্রধান, ইহ! ঠ৪নেক কার্যেই লাগিয়া থাকে | ছানা সহজে পরিপাঁক হয় না। সর ঘৃতের বপান্তর মাত্র। ইহ! অণ্প পরি- মাণে খাওয়াই উচিত | পীড়িতাবস্থায় অমুদায় নি- বিদ্ধ। উত্তাপ দ্বার] ক্রমে শুষ্ক করিলে চুগ্ধ হইতে ক্ষীর উৎ্পন্ধ হয়| ইহা! অধিক খাইলে পীড়। হয়। হংস প্রভৃতি কয়েকুটী পক্ষীর ডিন্ব স্সনেকে ব্যবহার করিয়া থাকেন ভাঁজা বা সিদ্ধ করিতে নিতান্ত কঠিন হুইলে, ইহা! গুকপাঁক হইয়! উঠে। কিন্ত মিনিট কাল মাত্র অত্যুষ্ণ জলে নিদ্ধ করিয়! খাইলে, অতি সহজে পরিপাক হয়? এতদেশীয় জলখাঁবারের মধ্যে মুড়ি ভাজা চিড়ে অতি লঘু ইহ অন্যান্য দ্রব্য অপেক্ষা সহজে পরি- পাক হইতে পারে দীর্ঘকাল রাখিলে বা জলসংযুক্ত হইলে ইহ! অনিষ্টকারী হইয়া! উঠে নারিকেল সহকারে খাইলে পীডা হইবার অস্ভাঁবনা নাই। মুড়কি প্রভৃতি অন্যানা দ্রব্য মুড়ির ন্যায় সহজে পরিপাক হয় না| - এতপ্গেশীয় পিষ্টকাদি প্রায়ই অনিষ্টকর | কিন্ত সুস্থ শরীরে অপ্প পরিমাণে খাইলে বিশেষ পীড়াদায়ক হয়না।

8৯

আন্নমণ্ড, যবমণ্ড প্রভৃতি, ছুর্ববল পীন্ডিত শরীরে বিশেষ উপকারী | অনেকে পীড়াকালে কল খাইতে সঙ্কুচিত হইয়।, ভ্রমবশতঃ ডুমুর, পটল প্রভৃতি খাইরা পাকস্থলিকে দুবিভ কবিয়। ফেলেন

কাক ৩য়জধ্যায়। পানীয় ]

মন্যা শশীব যে যে উপাদানে নির্ষিত, ত্বধ্যে জলই গ্রাধান!] গে রক্ত প্রবাহিত হইফা। শহ্ীরের ক্ষতি পুরণ কনে তাহা তন্াদ ভাগ বিশুদ্ধ জলমাত্র। পরীক্ষা দ্বাবা জান! শিপ্নাছে ঘে ভামাদের সমুদায় শরীরের ভাগ বিশুদ্ধ জল মাত্র শবীবে যে পরি- মাগে জল থাকিলে নিব্িঘে সমস্ত শানীবিক কার্য বিবর্ণ হইতে পাবে? কোন কাবণবশত£ঃ ভীহার ভপ্পত। হইলেই আমাদের পিপাসা উপস্থিত হয়, তা হাতেই আমরা জল পান করি। জল পান করিজে দেই শিগান। দিবারণ হস্ব, তখন শারীরিক কার্য সকল অব্যাছ- খরাধ, চলিতে থাকে 1 পীপানাঁকালে জল না পাইলে যে ভয়াঙ্গক ক্লেশ হয় তাহা দকলেই অবগত আছেন?

[ ৩১] (1

ফলতঃ অনাছারে বরং কয়েক দ্দিন জীবিত থাকা যাঁয়, কিন্ত জলপান নাঁকরিলে অতি ত্বরায়ই মৃত্যু হইয়া থাকে যাহার! প্রতিজ্ঞা হইয়া অনশনে জীবন ত্যাগ করে, পিপাদাই তাহাদিগকে সমধিক যাঁতনা দেয়; এমন কি, তাহখদের ভ৭্কলোক্ভ কাভির-বচন শুনিয়া পাষাণ হাদ- যত আর্ত হয়। এমত সময়ে তাচ্চাব। রুষ্টির জলবিন্দু, পইয়াও এড়ষঃ নয়নে জিহধ। বিস্তার পুর্কক তাহাই পান কবিরা তাহাতে শঘন করিমা, কত ভূষ্তি জন্গৃতব 'করে তাহ! বর্ণনাতীত। এরূপ অল্প পরিমাণে জল .পাইয়াও কষেক দিবম পর্য্যন্ত মৃত্যু হস্ত হইতে রক্ষা পাইদা থকে বাস্তনিক জল মে জীবন বলিয়া অভিএ হিত হ্টবাছে তাহ। অগ্রাক্কত নে

আম!দেব ভুক, ফুজ্ফুস্‌ প্রভৃতিৰ কার্ধযদ্বারা নিয়তই পা ভইতে জল বহির্গভ হইতেছে. শীতকাল অপেক্ষা এক্মকালে এই নকল কাধ্য অতি শীঘ, শীঘ, সম্পাদিত হয়, স্থতরাৎ প্রীক্মকালে অধিক জলপান্ন করিতে হয় | আমরা সান করিলে ত্বকের অসঙ্খ্য ছিদ্র দ্বারা শরীবে জল প্রবিষ্ট হয়, তাহাতে কিয় পরিমাণে পিপাসা নিধারণ হয় |

আমর! যে সকলব্রব্য আহার করি, তৎ্সমুদায় পাক-

যন্ত্রে ঠ&অবস্থিতি কালে জ্রনীভূত হইয়া শরীরে শোখিত হয়। শরীরে জলীয় পদার্থের অণ্পতা হইলে ম্সন্ন

[ ৩২ ]

ড্রবীভূত হইতে পাঁরে না, সুতরাং পরিপাক কার্যোর ব্যাঘাত জন্মে জল যেমন দ্রাবক এমন আর দেখা ঘাঁয় না| অজীর্ণ দোষ হইলে উপযুক্ত পরিম।ণে জলপন করিলে যে বিলক্ষণ উপকার হয় তাহার বিশেষ কারণ এই

পিপাঁনা হইলেই জলপান কর উচ্চিত। যে পরি- মাণে পান করিলে পিপানা শান্তি হয়, তাহার অধিক খাইলে পীড়া দায়ক হয়| কিন্তু অতিভোজন যেমন অনিষ্টকারী, অতিপান তত দোষ|বহ নহে অতিরিক্ত জলীয় ভাগ ভি শীঘ্‌ই ঘর্্মাদি দ্বারা বহিষ্কৃত হইয়া যায়; কিন্তু ঘর্্মদির আতিশযা বশতঃ ক্রেশ হইয়া থাকে।

ক্ষুধা সময়ে, যেমন ধীরে ধীরে আহার করিলে ক্ষুধা শান্তি হইল কি না, তাঁহ। অনায়।সেই বুঝা যায়, সেই রূপ পিপাজা হইলে ক্রমে ক্রমে অপ্প অপ্প করিয়া জল খাইলে পিপাসা নাশ হইল কি না, জনায়াসে তাহার উপলদ্ধি হয়। যেমন আহার করিবা মাত্র ক্ষুধাজনিত ক্লেশ যায় না, সেই রূপ জলপান করিবা মাত্র পিপাঁসাঁও অন্তন্িত হয় না| যে পর্যন্ত পীতবাঁরির কিয়দংশ শরীরের কার্যে নিয়োজিত না হয়, ততক্ষণ পিপাসা- জন্গিত ক্লেশ অন্তহিন্ডি হইবার নহে |

যখন পরিআম করিতে করিতে ঘন্মনি:সরণ হয়,

[ তত 7 $ ৮৭ ডগুকাঁলে শীতল জলপান কৰা ভাটবর্ধ | ঘর্দা-নিসঃরণ- কালে, ত্বগভিয়ুখে রক্ছের গতি হয শীহল ভলপান করিলে, সঙ্গন। দেই গতিন ব্যাঘাত হয, তাহাতে ভ্বগভি- সুখে ধাবিত রক্ত প্রত্যারত্ হইমা, জাদয়, ফদ্কফুস বা পাকঘস্ত্রে গমন কবিযা। ভাদা।দের পীডা উত্পাদন কবে।

পুর্বে উল্লেখ করা দিধাছে ভুত ন্ন, কেক প্রকবর্শিশাবীসিক বের দতিত গহমিলিত হউঘা জীণ হয়| কে'নদ্পে এই নৎমিলনের ব্যাঘাত হইলে, পারি পাক কাধ্যেণ ব্যাথ।ত হক্ব, দস্তাবনা। বাস্তবিকণড

তাহাই থঁটিয়। থকে আহারের অবহিত পুর্ষে বা

পরবে বা জাহার।লে আাঁধক তল খ|ইলে, পাচক গ্ুস- সকল জল-ংযোগে অবম্মণনি হইয়া পড়ে, তখন তাহা দেয় দ্বাব। শ্বন্দর পে পব্পাক হয় না| এনন্য তত" কালে জধিক জলপান করা নিষিদ্ধ |

কোঁন উষ্ঃ দ্রনা পম বা ভোজন করিবার বাহিত পৰে, শীতল জল খাইলেও অনিষ্ট হয়। উষ্ণ দ্রব্য খাইলে, দয়ুদয শানীবিক কার্ধ্য শী শীঘ, হইতে থাকে, ঘম্ম্ণাদি নিঃনবণও হয়, এরূপ সময়ে শীতল জলপান করিলে ত্বক বা পাকসন্ত্রাভিযুখে ধাবিত বন্ড, গহস| প্রত্যারত্ব হইয়া, শরীয়ের আত্তযন্তরস্থ যন্ত্র বিশেষে গমন

| [ ৩৪ করিয়া, পীড়া দায়ক হইতে পাঁবে। এই নিয়ম না বুঝিয়া ভানেকেই কফ, কাশ প্রভৃতি রোগগ্রত্ত হইয়া! থাকেন যে জল আমাদের শরীর রক্ষ/র একটী প্রধান সাধন, ছুর্ভাগ বশতঃ তাহ! প্রায়ই বিশুদ্ধাবস্থায় পাঁওয়। যায় না। অনেক স্ফানেব লোকেই, পক্ষিল, ভণলতা-পুর্ণ, £ঙ্গাচ্ছাদিত, পুতি গঙ্ধ-বিশিস্ট পুক্ষরিণীব'জলপাঁন কবি- যা পীডিত হইয়! পেন | কোন কোন গ্রামেব নিকটে নট বা বীল আছে তাহাব জলও অপক্লস্ট এরূপ জলে, নানা প্রকার দূষিত পদার্থ মিতিত থাকাতে তাহা পীড়াদায়ক হয। ইস্থা শোপুন করিধারও সহজ উপায় আছে। প্রথমতঃ, ইহ! স্ুন্দন পে উত্তপ্ত করিলে, তাপ-নংযেণে ইহার কয়েক প্রকার দিত বাপ বছি- সত হয়| তণ্পরে সামান্য ভন্!ব-চণ-পবিপুর্ণ কল- ীতে ঢালিতে হয়৷ কলঃটীব -৪লায় এবটী ছিদ্র রাখিয়া, তাহার নীচে একটা পাত্র স্কাপন করিলে প্রা নিম্মলি জল পাওষা যাইতে পারে ইহার দূঘিত পদার্থ সকল অঙ্গার দ্বারা আফ্লট হইয়া থকে | কিন্ট অঙ্গার দিয়া (বিশোধন করিলে জলের স্বাদের কিঞি« ব্যতিক্রম হইয়া উঠে! অবশেষে বটি কাগজ বা মোটা কাপড়ের উপর চালিলে, ইহার অপরিষ্কংত অংশ প্রায়ই তাহাতে সংলগ্র হইয়া থাঁকে। তখন সেই জল পান করিলে, আর পীড়। হইবার সম্ভাবনা থাকে না|

[৩৫]

যে নদী বা পুষ্করিণীর তল! বালুকাঁময়, যাহাতে সর্বদ] বায়ু রৌদ্র লাশিয়া থাকে, এরূপ স্থানের জল প্রায়ই বিশুদ্ধ। কিন্তু মান গাত্র মার্জনকালে তাহাঁ- তে নান! প্রকার দৃষিত পদার্থ যোজিত হইয়া তাহাকে পীড়াদায়ক করিয়া ফেলে যে নদীতে আ্বোত আছে ভাহাঁর জলই উত্ক্লউ, কিন্তু বর্ধাকালে তাহাতে নানা পদার্থ মিশিত হয়| তখন পুর্মোপায়ে বিশোধন না করিলে তাহ! পীড়াদায়ক হইতে পারে 1 কোন কোন নদী সমুদ্র-সন্নিহিত। তাহাদের জল ব্যবহার্য নহে।

এক্ষণে এদেশের অনেকে আর জলপান করিয়] পরিতৃপ্ত হন না| ইংরাঁজ জাতির সংনর্গ-দোঁষে ভাহা- রা সুরাসক্ত হইতেছেন। যে সকল মহণ্গুণে ইংরা- জেরা অন্যান্য জাতি অপেক্ষা শ্রেম্টতর হইয়াছেন, যাহার প্রভাবে তাহার! পৃথিবীর সর্বস্থানে মাননীয় হই- য়াছেন, তৎ সমুদাঁয়ের অন্থকরণে অসমর্থ হইয়া অনেকে তাহাদের জঘণ্য সুরাঁঘুক্তিরই অন্ছচর হইতেছেন। সুরাপানে ইংলণ্ডে যে সকল মহানিফ হইয়াছে হইতেছে, তাহার বিবরুণ পার্ট করিযাও তাহারা ইহা হইতে পরাঙ্মখ হন না। লুরাসক্ত ব্যক্তিরা সরল প্রকার কুক্রিয়া করিতেই উদ্যত | যদি কেহ নরাক্কতি পশু) দেখিবার অভিলাষ করেন, তাঁহ! হইলে প্রত্যহ সন্ধার পর কলিকাতা নগরীর লালবাঁজার প্রভৃতি

[৬]

স্থানে গ্রমন করিয়া ইংরাজ গোরাদিগকে দেখিলেই পুর্ন- মনক্কাম হইবেন | যে সকল কার্যে মনুষ্য ন।মের অবমা- ননা হয়, ভত্দমুদায়ই স্বরাসক্ত লোকের সাঁধা | অল্প কালের মধ্যেই এদেশের কত বিদ্যা-বুদ্ধি-বিশিষট উদার স্বভাব ব্যক্তি শ্বরাপান করিষা কাঁল-কবুল পতিত হইয়া ছেন, কত জন কত গর্হিত ক্রিয়া করিয।ছেন করি- তেছেন, তহ।র সষ্যা কর। যায় না| এক্ষণে ইংলগ্ডের প্রধান প্রধান পণ্ডিভ্গণ ক্ষির করিয়াছেন, যে শ্তস্থু শরীরে সুব। বিষতুল্য | ইহা পাঁন ককিলে, নানা প্রকার হটিকিত্মা ব্লোগ উপন্থিত হয় | উদরাময়, হক রোগ শ্বান, কশ প্রন্থৃতি ভয়ানক রে।গ-পবম্পরা জতি অণ্প কালের মদোই দেখা দেয়, পরিশেষে প্রবল হইয়া ভীবন হরণ কবে | ইংলগু প্রভৃতি শীত প্রধান দেশে এই আকুল হল কিছু বিলম্বে হয়, কিন্তু এতর্দেশে অভি অঞ্পকালের মধ্যেই প্রবল হুইয়া উঠে।

তেতলানদ পদার্থের ন্যায়, সুরা ফুম্ফুসে গমন করি- যা দগ্ধ হইয। থাকে, তাহুতে তাপ উদ্ভাবন হইয। শরীর উত্তপ্ত হয়। ইহার দাহনকালে, রক্তদ্থ দুষিত পদার্থ সফল, উচিত পরিমাণে নংশোধিত বহিষ্কৃত হইতে পারে না সুতরাং তাহা রক্তেই থকির। যায়, সেই রক্ত দেহ-পরিিভমণ করিয়|, সব্ত্র এথমে মস্তিষ্ক, পরে অন্যান্য যন্ত্রের বিকৃতি জন্মিয়৷ দেয়, তাহাতেই মাতালের! বিবেক

8৬

চি ২2

শক্তি-বিহীন হইয়া পড়ে তখন শীতক্রিয়। প্রভৃতি সন্তর্পণ করিলে, তাহারা অল্পক্ষণের মধ্যেই প্রক্কতিস্থ হইডে পানে।

দীর্ঘকাল সুরাপান করলে, মুখগ্ধী অপক্কষ্ট হইয়া যায়, শরীর পাঞুবর্ণ ধারণ করে, নিশ্বানে ভূর্ন্ধ হয়, চক্ষুদ্বয় ততই রক্তবর্ণ থাকে, নাসিকাগ্র লোহিত বর্ণ স্কীত হয়, অজীর্ণ দোঁষ উপস্থিত হয় | অস্ত্র, ষক্ক€ প্রভৃতি পাকযন্ক্রের বিকৃতি ভশ্মো, তাহাতে নানা বল- বু রোগ হয়| কোন কোন ব্যাক্ত সুর্র(পান করিয়! আসন্ন মৃত্যু মুখেও পতিত হন। দেহস্ছ রক্ত, অতি প্রবলবেশে মস্তিষ্কে ধাবিত হুইয়।, তত্রস্থ শিরা বা ধমণী বিশেষকে ছিন্ন করিয়া, ততক্ষণাণ্ প্রাণ হরণ করে।

এদেশে সুরা ব্যতীত, আরও নান। প্রকার মাদক দ্রব্য প্রচলিস্ত জাছে, তম্মধ্যে সিদ্ধি, আফিং, শীজা চরস প্রধান। এই কয়েকটীর যোঁগে নানা প্রকার মাদক প্রন্থত হয়। সমুদরায়ই অনিন্টকারী; ইহাদের বশীভূত হইলে নানা রোগ অকাল মৃত্যু হইয়া থাকে।

পীড়া হইলে চিকিত্দকের ব্যবস্থশলগসাঁরে সকল প্রকার মাদক দ্রবাই গ্রহণ করা যাইতে পারে; কিন্ত চিকিৎসকদিগের মধ্যে কেহ কেহ এরূপ মাঁদকপ্রিয়, যে অনেক পীড়াতেই অটবধ পরিম।ণে তাহাই ব্যবস্থা করিয়া থাকেন| এরূপ লোকের কথায় বিশ্বাম করা কোন-

[ক]

[০

মতেই খুক্তিযনক্ত নহে | কত ব্যঞ্ত পীডাকাঁলে মাঁদক সেবন ভাঁরম্ত করিয়া, অপ্প দ্রিনের মদে ভযানক মাঁদকাঁ- সক্ত হইয়াছেন, পরিশেষে নান'বিধ পাঁপপক্ে পতিত হইয়! ইছলোক হইতে অকালে প্রস্থান করিয়া- ছেন, তাহার সগ্খ্যা হয় না। অআতএন পীড়| কাঁলেই বিশেষ তর্ক হওয়া উচিত | সাহব। মাদক দেবনে একান্ত রত, তাহার প্রথমতঃ পীডর অন্গবেধেই এরূপ বিষভক্ষণ অভ্য।স করিয়।ছেন |] পরে জীবন পরিত্যাগও

শ্রেয়স্কর বিবেচনা করেন, তথাপি মাঁদক ত্যাগ করিতে পারেন না।

সটান অধ্যায়।

বাঁযু।

খাদ্য ব| পানীর অভাবে কঘেক দিবস জীবন ধারণ করা যাইতে পারে, কিন্তু বায়ু-নাদ হইলে ক্ষণকাল মধ্যে মৃতু উপস্থিত হয়। ঘাঁভাব। জলমগ্র হয় বা উদদ্ধনে প্রাণত্যাণ করে, বাঁঘুব ছগীবেই তাহ।ণের মৃত্যু হইয়া থাকে কখন কখন বায়ুর পরিবর্তে, অনা কোন কোন বাষ্প গ্রহণ করিলে মৃত্যু হইয়া খথাকে। যেতআঙ্গার

[7 ৩৯ 7 1 দাহন করিযা আমা রন্ধনাদি করিযা থাকি, তাহাতে বাঁঘুন্ব জম্জান বা্পেক সোঁগে, এক ভধানক প্রাণ- ন।শক বাষ্প উত্পপন্ন হয। ইহানে দ্য ভান্গারক বাক্প্‌ কহে ইছা নিশ্াম দ্বার। শবণরে গুইগত ভহলে, প্রথমতঃ নানা পাকার অঙ্ক ক্রেশ। গত অনঙ্গকাপ। মগো মৃত্যু হইয়! একে | কোন কোন ব্যন্তে ইহা হণ করিষ! আত্মঘাভ। হইন।ছেন, ইহাতে ক্রমে ক্রমে সে কপে নানাবিধ শানুণা ভোগ করিয়াছেন তা লিপিবদ্ধ করি- *ত বাট ক্বেন নাই | তাহাদের বিল্বণ পয করিলে টিভ আদ হয় |

ঘ্বস্‌ সাক বংস্পের লে দপকানিখশ শক উল্লেখ কা গোলে, ভা নাবাল আমাদের শন্ীনেউ উদ্পপন্ন হই-

রর

ছে নিশ্বাস ার। বাযু এ্রা্ণ করিলে, উর আমজান বাষ্প আঙক,পে খাবীনন্ক গছ তা, উন্ত বাপপদপে

পরিণত হগ। খন ভাজ! চি গকিলে বিষতুল্য হইবে বলিয়।ঈ, ফুষছগন হইতে প্রশ।ৰ দ্বারা বচিষ্কণ্ত হইতেথাঁকে। কোন কাপণ বশতঃ ভাঙা বাহির হইতে ন! পাঁকিলে শরীবেই থ!কিঘা যায়, তাহাতে পকাঁর হইযা! উঠে | বায়ু গ্ভানে আরও একটা ছুর্ঘটনা হয়| দুষিত রক্তে যে অঙ্গারের ভাঁগ থাকে, তাহাতে নিশাস দ্বারা বায়ু ঘংশোগ না হইলে, তাহা আর বহিষ্ক'ত হইতে পারে না, স্মুতর1ং রক্তের সহিত শরীরের সর্ধবস্থাঁনে

হি

চলিত হইয়া ভাহাকে বিষ্ঠত করিয়া ফেলে! এবপে প্রতি মিনিটে দেড রতি পরিমিত ভন্গার রক্তে যোজিত সইতে থাকে; সেই রক্ত মস্তিক্গ প্রড়ত শ্তীনে গমন করিয়। প্রথমতঃ সহজ্ঞাহরণ, ৫1৬ মিনিটের মধ্যে জীবন শেষ করিয়া ফেলে বায়ু অভাবে এইকপেই মৃত্যু হইযা থাকে

ইউরোপীয় পণ্ডিতের পরীক্ষ। ছার) স্থির করিয়া- ছেন, যে বিশুদ্ধ বায়ু ২০০০ ভাগে একভাগ দ্বামু অঙ্গারক,বস্প, কিন্ত প্রশ্বাস দ্বারা ফুলঘুস্‌ হইতে যে ব|য়ু নির্গত হয়, তার ২০০০ ভাগে ১০০ ভাগ উক্ত বস্প পাঁওয়। যায়। ইহাতে প্রতিপন্ন হই ওক্ছে, যে প্রশ্থান দ্বারা যে বায়ু বাহির হয়, তাহা প্রলনাসর গ্রহণ করা অন্গচিত। পুনঃ পুনঃ গ্রহণ করিলে তাহাতে অশেৰ ক্লেশ মৃত্যু হইবার জন্তাবনা নবাব দিরাজ- উদ্দৌলার সময়ের অন্ধকুপ হত্যার বিবরণ অনেকেই ভাবৰগীত আছেন। অতি সঙ্গীর্ণ স্থানে বনু লোক এক- ত্রিত হওয়াতে, কয়েক ঘণ্টা গত হইতে না ছইতে ১৪৬ জদ্দের মধ্যে ২৩ জন ভিন্ন আর কেহই জীবিত ছিল না| ইহারা, পুনঃ পুনঃ প্রশগিত বায়ু গ্রহণ করিয়া, যে ভয়ানক যন্ত্রণা পাইয়াছিল তাহ! বর্ণনাতীত।

গৃহের বাহিরে সর্বদা বায়ু সঞ্চরণ করিতে থাঁকে | এরপ স্থানে বনু সঙ্খ্যক লোক সমাগত হইলে কেন ক্ষতি

[6১] রত নই; কারণ বায়ুমোগে পরখদিত অর্গাবক বাষ্প ইত- স্ততঃ চ।লিত হয়! যায়। কিন্তু গহমধ্যোবা ভারত খানে ৬ধিক লোক একটিরত হইলে, নানা জলিল ঘটি- যা) থাকে যামাদেন বাসগ্রন্ যে কদর্য প্রপালীীতে নিশ্মিত, ভাহাতে বায়ু সঞ্চালনেন উপীষ নাই, ভযত বায়ু গ্রদেশের পথই থাকে না। একে গৃহাপি নিতান্ত মস্কীর্ণ, াজাভে আবার কাত্রিক।লে অনেকে, অকগ্ৃছে শয়ন কলি? থ।কেন | গ্ুছে হয়ত জানালা নাই, থা- কিলেও ত।হান মম্মখে কজু জানাল। না থাকাতে, বাধ গমন।গমন হয় না | 'শ্লীক্ষকালে গবাক্ষাদি খোলা থাকেঃ তাহছ:তে কিবণ্ পরিমাণে বায়ু গপবেশ করিকে পারে, কিন্ত শীহকালে তাহার কেন উপায়ই থাকে না। ভ্যাস দোবে এপ গ্রহে বাস কবাতে কোন উপস্থিত কষ্ট দেখ! ঘাস না বটে, কিন্ত তাহাতে নানা রোগের সঞ্চার হইয়! থাকে আমাদেন বাসগৃহ প্রশস্ত হওয়া উচিত প্রশস্ত গ্ুহে ২৩ জন বান করিলে কোন অনিষ্ট হইবার সম্তভাঁবন! ঝনই, কিন্ত এরূপ গৃহ নিম্মণণ করা সকলের পক্ষে সহজ নহে। সঙ্কীর্ণ গুছে বাস করিতে হইলে, অন্তত্ঞঃ তাঁহার চারিদিকের দেয়ালের উর্দ অধঃ দিগে ৮টা ছিদ্র রাখ! উচিত